ডেস্ক রিপোর্ট: দেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের কারণে প্রতিদিন মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে বলা হচ্ছে। বার বার সাবান-পানি দিয়ে হাত ধুতে বলা হচ্ছে। বা হ্যান্ডস্যানিটাইজার দিয়ে হাত জীবানুমুক্ত করে নিতে বলা হচ্ছে। এদিকে লালমনিরহাট সদর থানার ওসি মাহফুজ আলম ঘুষের টাকা নেয়ার আগে স্যানিটাইজার দিয়ে হাত জীবাণুমুক্ত করে নেন এমন একটি ভিডিও জেলা জুড়ে নানা আলোচনার জন্ম দিয়েছে।

ভিডিওতে দেখা যায়, লালমনিরহাট সদর থানার একটি মামলার আসামি পক্ষের কয়েকজন মামলাটির বাদীকে হেনস্থা করার কৌশল জানতে ওসি মাহফুজ আলমের কাছে এসেছেন। কৌশল হিসেবে ওসি’র পরামর্শ মোতাবেক তারা মামলাটির বাদীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ ও ১০ হাজার টাকা নিয়ে এসেছেন। অভিযোগটি নিয়মিত মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করতে ওসিকে দিতে হবে ১০ হাজার টাকা। এছাড়া তদন্ত কর্মকর্তাকে আরো ৩ হাজার টাকা দিতে বলেন ওসি মাহফুজ আলম।

ভিডিওতে দেখা যায়, ওসি মাহফুজ আলম আসামির অবস্থান জানার পরও তাকে জামিন নিয়ে বাদীর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন। তবে করোনাকালে ঘুষের টাকা নেওয়ার আগে স্যানিটাইজার দিয়ে হাত জীবাণুমুক্ত করতেও ভোলেননি ওসি।

ঘুষ নেওয়ার ভিডিও প্রসঙ্গে ওসি মাহফুজ আলম বলেন, আমি বাদী বা আসামীর কাছ থেকে কোনো সুবিধা গ্রহণ করি না। আমাকে হেয় করতে কোনো এক পক্ষ ভিডিওটি এডিট করতে পারে।

লালমনিরহাটের পুলিশ সুপার (এসপি) আবিদা সুলতানা বলেন, ভিডিও ফুটেজটি আমাদের হাতে এখনো আসে নি। ভিডিও হাতে পাওয়ার সাথে সাথেই তদন্ত করে অবশ্যই বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সূত্র: মানবকণ্ঠ