ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে ফেসবুকে মহানবীকে (স.) আপত্তিকর মন্তব্য করার দায়ে অভি দাস রনিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এর আগে তার বাবা জহর লাল দাসকে পুলিশ আটক করলেও মূল অভিযুক্ত গ্রেপ্তারের পর রনির বাবাকে ছেড়ে দেয়া হয়। এ বিষয়ে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে পুলিশ নিশ্চিত করেন।

শুক্রবার (১২ মার্চ) দিবাগত রাত একটার দিকে রাজধানী ঢাকার সায়েদাবাদ এলাকা থেকে জেলা পুলিশের একটি বিশেষ দল অভি দাস রনিকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার (সরাইল সার্কেল) মো. আনিসুর রহমান নিশ্চিত করেন। গ্রেপ্তারকৃত অভি দাস রনি (৩৩) জেলার সরাইল উপজেলার অরুয়াইল ইউনিয়নের অরুয়াইল গ্রামের দাসপাড়ার জহর লাল দাসের পুত্র।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে প্রকাশ, শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ফেসবুকে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (স.) কে কটুক্তি করে অবমাননাকর মন্তব্য করার জেরে উপজেলার অরুয়াইল বাজার এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে মন্তব্যকারি যুবকের বাড়ি ঘেরাও করে স্থানীয় গ্রামবাসী। এই ঘটনায় অভিযুক্ত অভি দাস রনির পিতা জহরলাল দাস জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।

অরুয়াইল ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূইয়া বলেন, অভিযুক্ত যুবক অভি দাস রনি বাড়িতে থাকে না। সে কুমিল্লার লাকসাম উপজেলা এলাকায় একটি এনজিওতে চাকরি করেন। স্থানীয় এক যুবক ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন “গোলাপে এত সুগন্ধি কেন? নবীজির এক ফোটা ঘাম মোবারক পড়েছিল তাই।” এই স্ট্যাটাসে অভি দাস রনি মহানবীকে (স.) নিয়ে আপত্তিকর একটি মন্তব্য করেন। এই মন্তব্যের বিষয়টি স্থানীয়রা জানতে পেরে শুক্রবার সন্ধ্যায় জড়ো হয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেন। মিছিল শেষে বাজার এলাকায় অভিযুক্ত অভি দাস রনির বাড়ি ঘেরাও করেন তারা। এসময় এলাকার মুরুব্বী ও অরুয়াইল পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা বিক্ষোভকারীদেরকে ওই আপত্তিকর মন্তব্যের বিষয়ে সঠিক বিচারের আশ্বাস দিয়ে শান্ত করে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে সক্ষম হন। তবে বিক্ষোভকারীরা অভি দাস রনিকে গ্রেপ্তার করতে ২৪ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছিলেন। নির্ধারিত সময়ের আগেই শুক্রবার রাতে রাজধানী ঢাকার সায়েদাবাদ এলাকা থেকে অভিযুক্ত অভি দাস রনিকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।