খন্দকার আহমেদ: নির্বাচন উত্তর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতি ক্রমেই জটিল থেকে জটিলতর হচ্ছে..ক্ষমতা হস্তান্তরের কোন লক্ষনই দেখা যাচ্ছে না.. বরং ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসনের বর্তমান পররাষ্ট্র সচিব (মন্ত্রীর সম-মর্যাদা) মাইকেল পাম্পেও দ্বিতীয়বারের মত ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসনের পররাষ্ট্র সচিব হবার আশা করছেন..নির্বাচনের ফলাফলের চারদিন পেরিয়ে গেলেও ডোনাল্ড ট্রাম্প ফলাফল মানতে চাচ্ছেন না, বরং নির্বাচনে সূক্ষ্ম কারচুপি হয়েছে বলে বিভিন্ন ষ্টেটে মামলা করে চলেছেন, যদিও কোথাও কারচুপি হয়েছে কিনা আজ অবধি উনি প্রমাণ করতে পারেননি..

প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ের সচিব মার্ক এসপারকে ‘টুইট’ এর মাধ্যমে বরখাস্ত করেন এবং ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসনের অনেককেই অচিরেই বরখাস্ত করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে…রিপাবলিকান দলের মাত্র চার সিনেটর এবং সাবেক প্রসিডেন্ট জর্জ বুশ প্রেসিডেন্ট ইলেক্ট জো বাইডেন এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট ইলেক্ট ক্যামেলা হারিসকে অভিনন্দন জানিয়েছেন..এই অবস্হায় চরম শংকা, উদ্বেগ, উৎকণ্ঠার মধ্যে জনগণের দিন কাটছে..তবে কি দেশটির সামনে ভয়াবহ সংকট অপেক্ষা করছে..রাজনৈতিক অচলাবস্থা, যা কখনই দেখা যায়নি.. সহসাই কি হবে রাজনৈতিক অচলাবস্থার অবসান..ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া কি হবে খুব সহজেই..এই প্রশ্নের উত্তর পেতে আরো অপেক্ষায় থাকতে হবে.. কোন পথে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র??

Advertisement
কম খরচে বীর বাঙালির মতো নিউজপেপার ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান?

আগ্রহী হলে ক্লিক করুন (www.bdwebsite.net)

অন্যদিকে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে.. করোনা এখন আগের চাইতে আরো ভয়ংকর রূপ নিয়েছে.. শীতের তীব্রতা এখনও তেমন বাড়েনি.. ধারণা করা হচ্ছে শীতে করোনায় আক্রান্ত বাড়বে..

গত ৬ দিনে প্রতিদিনই আক্রান্তের সংখ্যা ছিল এক লক্ষের উপর.. আজ আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১ লক্ষ ২৮ হাজার, একদিনে সর্বোচ্চ হাসপাতালে ভর্তি ৬১ হাজারেরও উপর এবং মৃত্যু ১ হাজার ৩৪৭ জন..

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরে নতুন করে লক ডাউন দেওয়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে..
বৃহত্তম শহর নিউইয়র্ক এবং লস অ্যাঞ্জেলেসে সংক্রমণ দ্রুতই বাড়ছে, বাড়ছে অন্যান্য বড় শহরগুলিতে.. ফাইজারের ভ্যাকসিন কতখানি কার্যকরী তা এখনও বলা যাচ্ছে না.. প্রেসিডেন্ট ইলেক্ট জো বাইডেন যথার্থ বলেছেন, ‘Will be Dark Winter’…