ভারতের জনপ্রিয় অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। অনেক দর্শকপ্রিয় ও ব্যবসাসফল সিনেমা উপহার দিয়েছেন। ভারতীয় কিংবদন্তি অভিনেতাদের একজন তিনি।

কিন্তু খুব সহজে এই অবস্থানে পৌঁছাননি মিঠুন। এজন্য অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে তাকে। এমনকি জীবন সংগ্রামের এক পর্যায়ে আত্মহত্যার কথাও ভেবেছিলেন তিনি।

অভিনেতা হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে কলকাতা থেকে মুম্বাইয়ে পাড়ি জমান মিঠুন চক্রবর্তী। কিন্তু সেই সময় সেখানে থাকার কোনো জায়গা তার ছিল না। পকেটে ছিল না খাবার কেনার টাকা। বন্ধুর সাহায্য নিয়ে একটি জিমে গিয়ে গোসল করতেন। একের পর এক চেষ্টার পর যখন ব্যর্থ হচ্ছিলেন, তখন আত্মহত্যার কথা ভেবেছিলেন ‘ডিসকো ড্যান্সার’খ্যাত এই তারকা।

তবে শেষ পর্যন্ত হাল না ছেড়ে পরিশ্রম করেছেন মিঠুন। পরবর্তী সময়ে সিনেমায় সুযোগ পেয়েছেন। নিজের মেধা ও দক্ষতা দিয়ে দর্শক মনে ঠাঁই করে নিয়েছেন। এখন যারা আত্মহত্যার কথা ভাবেন তাদের আত্মবিশ্বাস জোগান তিনি। জীবন সংগ্রামে জয়ী হওয়ার মন্ত্র শেখান।

সম্প্রতি ভারতীয় জনতা পার্টিতে (বিজেপি) যোগ দিয়ে নতুন করে আলোচনায় এসেছেন ‘এমএলএ ফাটাকেষ্ট’ সিনেম্যেখাত এই অভিনেতা। পশ্চিমবঙ্গের বিধান সভা নির্বাচনে তিনি প্রার্থী হবেন বলেও শোনা যাচ্ছে।

এক সময় তৃণমূল কংগ্রেসে ছিলেন। এবার এবার শত্রুশিবিরে। মিঠুন বলেন, “এখন কেন্দ্রে বিজেপি। এখানেও বিজেপি আসলে তারা চাইবে এই রাজ্যটাকে ধরে রাখতে। আর ধরে রাখতে হলে ভালো করতেই হবে। আমার মূল আগ্রহটা এখানেই। হ্যাঁ, এটাই সুযোগ। আর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে আমার ১৫ মিনিট কথা হয়েছে। তিনি আমাকে মিঠুনদা বলে সম্বোধন করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা সবার সরকার চাই। এক চোখে সরকার চালাবো না, দুই চোখে সরকার চালাবো। আর সাফল্যমণ্ডিত পশ্চিমবঙ্গ গড়ে উঠবে। এগিয়ে যান। সরকার গঠন করেন। আমার যতটুকু সামর্থ্য আছে করব।’ এর থেকে আর কি চাই।”